The Safest Way to Keep Your Money

 

* আপনি কোথায় যাবেন, কখন যাবেন, এগুলো না জানা স্বত্বেও কি কখনো কোন Train বা Bus এ চড়ে বসেছেন? বোধ হয় নয়। এরকম আচরণ যদি কেউ করেন তাকে তো পাগলামি করছেন এটাই বলা হবে, তাই না?

* আপনি কি, কি অসুখ করেছে না জেনে, কোন ওষুধ প্রয়োজন সেটার Expert Advice না নিয়েই কি  Direct ওষুধের দোকানে ছুটে যান, আর সবাই যে ওষুধটা কিনছে অতএব আমি সেটা কিনে নি? 

মনে হয় না এরকম কাজ কেউ করেন। অথচ টাকা পয়সা রাখার সময় আমি হামেসাই বেশিরভাগ মানুষকে ঠিক  এই ধরনের কাজই করতে দেখি। কোথাও যেতে গেলে যেমন Destination Place, Time এগুলোর প্রয়োজন, Medicine Choice করার জন্য যেমন রোগটা Diagnosis হওয়া আগে প্রয়োজন ঠিক তেমনি টাকা পয়সা সঞ্চয় করতে গেলে, সঞ্চয় করার কারন বা Purpose, Financial Goal, Time horizon এগুলো জানা Compulsory। 

Continue reading

There Is Nothing, Absolutely Nothing, More Important Than Meeting Our Own Basic Needs.

 

দুজন ব্যক্তি, একজনের নাম সনাতন, আর একজনের নাম দীনেশ। দুজনেরই জীবিকা সমুদ্রে গিয়ে মাছধরা, একই পারায় থাকে, যে সময় বা  যখন ওদের সাথে আমার দেখা হয়েছিল তখন Bad Weather এর জন্য সমুদ্রে মাছ ধরতে যাওয়ার একটা নিষেধাজ্ঞা ছিল। তো সনাতন রোজ হয় তার নৌকার কিছু Repairing এর কাজ করত না হলে মাছ ধরার জাল Repairing এর কাজ করত। আর একই পেশায় নিযুক্ত দীনেশ ওই সময় হয় তাস খেলত নাহলে বন্ধু বান্ধবদের সাথে জুয়ো খেলত। কথায় এবং গল্প করতে করতে  বুঝেছিলাম সনাতন এর অবস্থা দীনেশ এর থেকে বেশ ভাল। আমার মনে হয়েছিল এটা হওয়ার কারন ছিল ওদের দুজনের Attitude। যখন সনাতন বসে জাল Repairing করত নৌকা সারাই করত ঠিক তখন দীনেশ Present কে উপভোগ করত।Result সনাতন এর Productivity এবং Adoptability অনেক বেশি ছিল। 

Continue reading

Why People Feel Bank FD & Bank Are Safer Options [In Bengali]

 

ইতিহাস ঘাঁটলে দেখা যায় মানুষের বিশ্বাস যে 4th Century AD তে সোমনাথ Temple তৈরী হয়েছিলো। সেই সময় কোনো রকম Bank ছিলো না। তখন মানুষ তাদের Savings মানে সোনা, গহনা সব রেখে দিতো ঐ সোমনাথ মন্দিরে। ঐ সময়ে তাদের বিশ্বাস ছিলো ঠাকুরের মন্দির থেকে কেউ কখনো চুরি করবে না। সত্যি বলতে কি চুরিও হতো না। কারন কারুর তখন সাহসই ছিলো না মন্দিরের ভিতরে ঢুকে চুরি করার।এই ভাবে ধীরে ধীরে মানুষের মনেও বিশ্বাস জন্মে গেল যে মন্দির মানে Safe Place। আনুমানিক প্রায় 600 বছর এই বিশ্বসের ওপরই এইভাবেই চলছিলো।

তারপর 11th Century তে গজনীর সুলতান প্রথম এই মন্দির লুট করে সব গহনা ও টাকা পয়সা নিয়ে চলে যায় তার দেশে। তারপর বিভিন্ন দেশের সুলতানরা বিভিন্ন সময়ে তৎকালীন মন্দিরগুলোকে ( সোমনাথ মন্দির সহ ) লুট করে মানুষদের সর্বশান্ত করে দেয়। একা সোমনাথ মন্দিরই 17 বার লুণ্ঠিত হয়। কিন্তু দেখা গেছে তারপরেও আবার মানুষরাই ঐ মন্দিরেই তাদের সব সম্পদ রখত। এটাই হলো Mindset বা Biasness। Behavioral Researcher রা এটাকে বলেন Cognitive Bias.   

এই Bias ধারনায় যখন কেউ তার অজান্তেই আক্রান্ত হন তখন তিনি তাঁর অজান্তেই এই বিশ্বাসে আবদ্ধ হয়ে যান যে মন্দির Safe Place, ঠাকুরের পূজোয় কোনো খামতি হওয়ায় ঐ চুরি হয়েছে, “মন্দির Safe Place” । তাদের পূর্বপুরুষরা যেটা বিশ্বাস করতেন তাতে কোনো ভুল ছিল না। প্রথম বার, দ্বিতীয় বার, তৃতীয় বার এই ভবে বার বার লুঠ হওয়ার পরেও বেশির ভাগ মানুষ যারা ঐ Biasness এ আক্রান্ত ছিলেন তারা কেউ কোনো Alternative খোঁজেন নি। কিছু ব্যক্তি পরে শুরু করলেন মাটির তলায় সব সম্পদ পুঁতে রাখা।

একইভবে বিভিন্ন গজনীর সুলতানরা আজ বিভিন্ন ছদ্মনামে যেমন- “Nirav Modi”, “Vijay Malia” প্রভৃতি নাম নিয়ে মন্দিরের যায়গায় Bank লুঠ করছে। ঐ সময়ে যেমন মন্দির লুঠ করার পর তারা আবার বিদেশে পালিয়ে যেত আজ এরাও ঠিক তাইই করছে। তখন তো সোমনাথ মন্দির 17 বার লুঠ হয়েছিলো, আজ আমরা জানিও না এর আগে Bank এরকম কতবার লুঠ হয়েছে। তবু আজও বহু মানুষের বব্ধমূল ধরনা Bank এ থাকা টাকা মানে গচ্ছিত টাকা এবং Safe। মাথায় রাখতে হবে 1 লাখ টাকা পর্য্যন্তই Safe।

আমার অনুরোধ Alternative Option গুলো Bias Free হয়ে বিচার করে দেখে তবে সিদ্ধান্ত নিন।

আপনাদের মতামত জানতে পারলে ভলো লাগবে।